তজুমদ্দিনে স্বেচ্ছাসেবক লীগের আয়োজনে শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস পালিত।

প্রকাশিত: ১১:১৮ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৬, ২০২১

ভোলা (দক্ষিন) প্রতিনিধি।।

ভোলার তজুমদ্দিন উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আয়োজনে কেন্দ্রিয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস পালিত হয়েছে। শুক্রবার বিকেল ৫ টায় দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা ও দোয়া মিলাদের মধ্য দিয়ে এ কর্মসূচি পালিত হয়।

এসময় টেলিকনফারেন্সে ভোলা-৩ আসনের সাংসদ নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনাকে ২০০৭ সালে রাষ্ট্র বিরোধী একটি চক্র বিদেশি অপশক্তির মদদে গ্রেপ্তার করে। ১৯৭৫ সালে জাতীর জনককে হত্যার মাধ্যমে ও-ই চক্রটি বাংলাদেশকে যেমনি তলা বিহীন ঝুড়িতে পরিনত করতে চেয়েছিল ঠিক সেই ষড়যন্ত্রের শিকারে পরিণত হয়েছেন আমাদের প্রিয় নেত্রী। অবশেষে জননেত্রীকে রাজনীতি হতে মাইনাস করার জন্য তাদের শত চেষ্টাকে বিফলে পরিনত করে আওয়ামী লীগের নেতা কর্মি ও এদেশের সাধারন মানুষ। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বলিষ্ঠ নেতৃত্বের কারনেই আজ বাংলাদেশ পৃথিবীর বুকে মাথা উঁচু করে দাড়াতে পারছে।
নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন এমপি আরো বলেন, শেখ হাসিনাকে ২১ বার হত্যার চেষ্টা করেছে জামাত বিএনপি সহ দেশ বিরোধী অপশক্তি। তারা চায় শেখ হাসিনাকে মাইনাস করে দেশকে একটি জঙ্গিবাদ রাষ্ট্রে পরিনত করা। এদেশের লাখ লাখ মুক্তিকামী মানুষ আওয়ামী লীগের সাথে আছে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বেই তার আগামী দিনগুলোতেও নৌকা বিজয়ের মধ্য দিয়ে শান্তিতে বাস করতে চায়।

উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি ইসতিয়াক হাসান এর সভাপতিত্বে এসময় আরো বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফখরুল আলম জাহাঙ্গীর, সম্পাদক ফজলুল হক দেওয়ান, সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যক্ষ হেলাল উদ্দিন সুমন, নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান (চাঁদপুর ইউপি) শহিদুল্যাহ কিরন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন পোদ্দার, সেলিম রেজা, এম নয়ন প্রমুখ।

২০০৭ সালের ১৬ জুলাই ভোরে আওয়ামী লীগ সভাপতির বাসভবন সুধাসদন থেকে আটক করা হয় শেখ হাসিনাকে। পরে কয়েকটি মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে সংসদ ভবন এলাকায় স্থাপিত বিশেষ কারাগারে বন্দি রাখা হয় তাকে। এর প্রতিবাদে ফেটে পড়েন দলটির সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা। ধীরে ধীরে তা তীব্র হয়। জাতীয় ও আন্তর্জাতিক চাপের মুখে এক পর্যায়ে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য আট সপ্তাহের জামিনে মুক্তি দেওয়া হয়। মুক্তির পরদিনই তিনি চিকিৎসার উদ্দেশে যুক্তরাষ্ট্রে যান। চিকিৎসা শেষে ২০০৮ সালের ৬ নভেম্বর দেশে ফেরেন শেখ হাসিনা। এর পর স্থায়ী জামিন দেওয়া হয় তাকে। এদিনটিকে আওয়ামী লীগ গনতন্ত্রের কারাবন্দি দিবস হিসেবে পালন করে আসছে।