ভোলা শহরে সাংবাদিক আফসার উদ্দিন বাবুল’র নাম ভাঙ্গিয়ে জমি দখলের পায়তারা করছে দূর্বৃত্তচক্র!

প্রকাশিত: ৮:৪৮ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২২, ২০২১

স্টাফ রিপোর্টার ॥
ভোলা শহরের প্রানকেন্দ্রে বাংলা স্কুল মোড় সংলগ্ন আমানত পাড়ায় সাংবাদিক মরহুম আফসার উদ্দিন বাবুলের নাম ভাঙ্গিয়ে একটি দূর্বৃত্ত চক্র মন্তাজ উদ্দিন মিয়া এস্টেটের জমি দখলের পায়তারা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে । শুক্রবার (২২ জানুয়ারী) সকালে ওই চক্রটি অস্ত্র-স্বস্ত্রে সজ্জিত হয়ে এ জমির কিছু অংশে অবৈধভাবে পাকা দেয়াল নির্মানকালে জমির মালিকপক্ষ বাধা দিলে উত্তেজনা দেখা দেয়। দখল সন্ত্রাসের এমন অভিযোগ এনে মন্তাজ মিয়া এস্টেটের বর্তমান মোতওয়াল্লি দাবীদার জামাল মিঞা স্থানীয় একটি পত্রিকা অফিসে সংবাদ সম্মেলন করেন । সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি বলেন, মরহুম মন্তাজ উদ্দিন মিয়া ও এন্তাজ উদ্দিন মিয়া এস্টেটের সন্তান কাবিল মিয়ার অংশের ৯৭৮ ও ৯৭৭ দাগ ভুক্ত হাল খতিয়ান নং ৬৪৯ (উঢ়-৫২৬) এর ১৪.৬৮ শতাংশ জমিতে দখলদার নিযুক্ত আছেন । ওই সম্পত্তিতে সাড়ে ৭ শতাংশের উপর কাবিল মিয়ার পুত্র জামাল উদ্দিন মিয়ার বসতঘর বিদ্যমান রয়েছে। তার দখলীয় অবশিস্ট জমি দখলের জন্য স্থানীয় চিহ্নিত দূর্বৃত্ত রনি ও অমির নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী জমি দখলের টেস্টা চালাচ্ছে। জামাল মিয়া বলেন, আমার পৈত্রিক সুত্রে পাওয়া এ সমস্ত সম্পত্তি মুলত ওয়াকফ করে দেয়া। যার (ইসি নং ১২৪৯) এটির বর্তমান মোতাওয়াল্লির দায়িত্বে আছেন তিনি। জামাল মিয়া আরো বলেন, আমাদের এস্টেটের মূল্যবান জমি দখলের হীন চেস্টা চালাচ্ছে একটি ভুমিদস্যুচক্র। যারা জমি দখল করতে চাইছেন তাদেরকে এ শহরে সকলেই চিনেন । জামাল মিয়া বলেন, পার্শ¦বর্তী রনি- অমি গংদের সাথে কাবিল মিয়া গংদের কোন প্রকার জমিজমা বিরোধ নেই। তাছাড়া দুর্বৃত্ত চক্রটির কারো কাছেই আমরা জমিজমা বিক্রি করিনি বলে জানান জামাল মিয়া। লিখিত বক্তব্যে জামাল মিয়া বলেন, আসন্ন ভোলা পৌরসভার নির্বাচনে আমার স্ত্রী বর্তমান কাউন্সিলর রাজিয়া সুলতানা ফের প্রার্থী হয়েছেন। আর এ কারনেই আমার স্ত্রী সম্পর্কে ভুমি দস্যুরা সামাজিক গনমাধ্যমে মিথ্যা অপপ্রচার চালাচ্ছেন। তিনি এসব অপপ্রচার ও মিথ্যাচারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। জামাল মিয়া এসমস্ত সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে স্থানীয় সাংসদ সাবেক মন্ত্রী আলহাজ্ব তোফায়েল আহমেদ ও জেলা প্রশাসন এবং আইন শৃংখলা বাহিনীর কঠোর হস্তক্ষেপ চেয়েছেন। এদিকে মরহুম আফসার উদ্দিন বাবুলের স্ত্রী শাহিনা আফসার দাবী করছেন, বিবদমান সম্পত্তিতে তাদের ৪ শতাংস জমি রয়েছে। যদিও তিনি ওই জমির প্রমান স্বরুপ কোন প্রকার কাগজ পেশ করতে পারেননি।