বোরহানউদ্দিনে যৌতুক না পেয়ে স্ত্রীর গায়ে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা

প্রকাশিত: ৯:২৩ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৯, ২০২০

তানভীর আহমেদ, বোরহানউদ্দিন প্রতিনিধি: ভোলার বোরহানউদ্দিনে যৌতুক না পেয়ে স্ত্রীর গায়ে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সুত্র জানায়, উপজেলার বড়মানিকা ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ বাটামারা গ্রামের প্রবাসী সালাউদ্দিন এর মেয়ে ইমা(১৯) কে প্রতিবেশী মিলন আইট্টার ছেলে, মঞ্জু আইট্টা (২৫) অনুমান ৬ মাস পূর্বে বিবাহ করে। যৌতুক ছাড়া এই বিবাহ মঞ্জুর বাবা মিলন আইট্টা ও মা আমেনা বেগম মেনে নেয়নি।

তাই বিবাহের পর থেকে ইমা তার বাবার বাড়িতেই থাকতে হয়। স্বামী মঞ্জু প্রায়ই ইমার কাছে আসা যাওয়া করত। এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৭ই ডিসেম্বর রাত ইমার স্বামী মঞ্জু ইমাদের বাড়িতে যায়।রাতের খাবার খেয়ে সকলে ঘুমিয়ে পড়ে।রাত অনুমান সাড়ে ১১ ঘটিকায় স্বামী মঞ্জু ইমাকে ডেকে ইমাদের ঘরের দক্ষিণ পাশের পুকুর পাড়ে নিয়া যায়।

সেখানে মঞ্জু ইমার নিকট যৌতুক দাবি করে। ইমা দিতে অস্বীকার করলে, শ্বশুড় মিলন আইট্টা,শ্বাশুড়ি আমেনা বেগম,দেবর নজরুল সহ অজ্ঞাত ২/৩ জন ইমার গায়ের ওড়না দ্বারা হাত-পা বেঁধে,মুখ চেপে ধরে মারধর করে।

একপর্যায়ে রাত অনুমান ০১টায় ইমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে ইমার গায়ে আগুন লাগিয়ে সকলে পালিয়ে যায় ।ইমার ডাক চিৎকারে ইমার মা চাচী সহ আরো অনেকে এসে ইমাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য ঐ রাতেই ভোলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন।ভোলা সদর হাসপাতালের দায়িত্বে থাকা চিকিৎসক ভিকটিমের অবস্থা আশংকা জনক দেখে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শেখ হাসিনা বার্ণ ইউনিটে প্রেরণ করেন। ভুক্তভোগী ইমা বর্তমানে সেখানেই চিকিৎসাধীন আছে।

ইমার মা সুরমা বেগম ও নানা নুরনবী চিকিৎসার কাজে নিয়োজিত থাকায় বাদীর এজহার এর প্রেক্ষিতে ইমার মামা মোঃ মিজান বাদী হয়ে ০১। মঞ্জু আইট্টা (২৫),০২। মিলন আইট্টা(৫৫),০৩। আমেনা বেগম (৫০),০৪। নজরুল ইসলাম সহ অজ্ঞাত ২/৩ জনকে আসামী করে বোরহানউদ্দিন থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০২০ এর ৪(১)/১১(গ)/৩০ ধারায় মামলা দায়ের করে (মামলা নং ২০ তারিখ- ২৮/১২/২০২০ )ইং।

বাদীর এজহার এর প্রেক্ষিতে বোরহানউদ্দিন থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মাজহারুল আমিন বিপিএম মামলা নথিভুক্ত করেন।

বোরহানউদ্দিন থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মাজহারুল আমিন (বিপিএম) বলেন, ঘটনাটি অত্যান্ত দুঃখজনক এবং স্পর্শকাতর বিবেচনায় এনে অধিক গুরত্বের সাথে তদন্ত কার্যক্রম করে যাচ্ছি। জড়িতদের শীগ্রই গ্রেফতার করে বিজ্ঞ আদালতে উপস্থাপন করার জন্য অভিযান চলছে। বলে নিশ্চিত করেছেন।