সাংবাদিক মোরশেদ আলম ভুঁইয়াকে হত্যার হুমকি থানায় সাধারণ ডায়েরী।

প্রকাশিত: ৩:৩৮ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৫, ২০২০

বোরহানউদ্দিন প্রতিনিধি

জানাযায় গত এপ্রিল ২০ইং তারিখে সাংবাদিক মোরশেদ আলম ভুঁইয়ার মালিকানাধীন ভোগ দখলিও জমি জোরপূর্বক কিছু ভুমি দস্যু দখল করে নেয়। এতে মোরশেদ আলম ভুঁইয়া স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের বিষয়টি সমাধান করার জন্য জানাইলে ভুমি দস্যুগ্রুপটি ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে হত্যার হুমকি দেয় এরই পরিপ্রেক্ষিতে মোরশেদ আলম ভুঁইয়া ৬জনকে অভিযুক্ত করে স্থানীয় বোরহানউদ্দিন থানায় সাধারণ ডায়েরী করেন(বোরহানউদ্দিন থানা ডায়েরী নং-৫৩ তারিখ০২/০৫/২০)।
“মোরশেদ আমল ভুঁইয়া সাংবাদিকদের জানান,, গত কয়েক মাস আমার সাথে জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলছে একই বাড়ীর মজনু ভুঁইয়া, পিতাঃ মৃত এছাক ভুঁইয়া, ইয়াকুব ভুঁইয়া, আজাদ ভুঁইয়া উভয়ের পিতাঃ মৃত আবুল কাসেম গংদের সাথে, তারা আমাকে বিভিন্ন সময় হুমকি ধামকি দিতে থাকে একপর্যায় আমার ভোগ দখলিও জমি জোরপূর্বক দখল করে নেয়। জমি দখল করে নিয়েও ক্ষান্ত হননী তারা পরিকল্পনা শুরু করে আমাকে হত্যা করার জন্য এরই ধারাবাহীকতায় গত ০৮/০৫/২০ই তারিখে স্থানীয় কাজীর হাট বাজারে যাওয়ার পথে আনুমানিক বিকাল ৩.৫৫ ঘটিকার সময় আগে থেকে অৎপেতে থাকা মজনু ভুঁইয়ার নেত্রীতে ভাড়াটিয়া সন্রাসী আবরাহানসহ ১৫–২০ জনের একটিগ্রুপ আমাকে আক্রমণ করে এতে আমি গুরুতর আহত হই পরে স্থানীয় লোকজন আমাকে উদ্ধার করে বোরহানউদ্দিন হাসপাতালে সিকিৎসা দেন। পরদিন আমি নিজে বাদী হয়ে বোরহানউদ্দিন থানায় ১২জনকে আসামী করে (মামলা নং-০৬/১০৪ তারিখ ০৯-০৫-২০২০ইং)একটি মামলা করি। আমি আইনের আশ্রয় কেন নিলাম, এজন্য আসামীরা আমার ঘর ভাঙ্গতে আসে এবং মামলার সাক্ষীদের হত্যার হমকি দেয় যাতে ভয়ে কেউ সাক্ষী না দেয়।পরবর্তীতে আমি বিষয়টি প্রশাসনকে জানাই তখন তারা আমাকে আরেকটি ডায়েরী করার পরামর্শ দেন।পরামর্শ অনুযায়ী আমি আরেকটি ডায়েরী করি(বোরহানউদ্দিন থানা ডায়েরী নং-৪২০ তারিখ ১২/০৫/২০) বর্তমানে বিচারাধীন রয়েছে।
মোরশেদ আরো বলেন, ভুমি দস্যুগ্রুপটি আমাকে এখনো অনবরত হুমকি দিচ্ছে আমি যাতে বাড়ী ছেড়ে চলে যাই আর যদি না যাই তাহলে আমাকে মেরে পেলবে আমার সন্তানদের তুলে নিয়ে যাবে প্রয়োজনে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করবে।
এ অবস্থায় প্রশাসন এবং সংশ্লিষ্ট সকলের কাছে আবেদন আমি যেন সুষ্ঠু বিচার এবং আমি ও আমার পরিবারের নিরাপত্তা পাই।