দৌলতখান পৌর নির্বাচনে দলীয় মনোয়ন পেতে মাঠ দাপাচ্ছেন মেয়র প্রার্থী খোকন।

প্রকাশিত: ৫:৫৪ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ২৮, ২০২০

স্টাফ রিপোর্টারঃ

তফসিল ঘোষণা না হলেও পৌরসভার নির্বাচন ঘিরে ভোলার দৌলতখানে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে ঢেউ উঠেছে । মূল নির্বাচনের আগেই আওয়ামী লীগের মনোনয়ন যুদ্ধে বহুমুখী প্রতিদ্বন্দ্বিতার জোর আভাস পাওয়া যাচ্ছে। সম্ভাব্য প্রার্থীরা মনোনয়ন নিশ্চিত করতে গোপনে এবং প্রকাশ্যে নানামুখী তৎপরতা শুরু করেছেন। ভোটারদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে ইতিমধ্যে পৌর এলাকার বিভিন্ন গুরুত্বপুর্ন স্থান এমনকি পাড়ায় মহল্লায়ও শুভেচ্ছা জানিয়ে রং বেরঙের পোষ্টার-ব্যানার ঝুলিয়েছেন প্রার্থীরা। সরকার দলীয় একাধিক প্রার্থী মাঠে থাকলেও বিএনপি দলীয় দুজন প্রার্থীর নাম শোনা যাচ্ছে ।
আওয়ামী লীগের স্থানীয় নেতা কর্মীরা জানান, জানুয়ারীতে দৌলতখান পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। ওই নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন কে পাচ্ছেন তা নিয়ে সাধারণ কর্মীদের মধ্যে চলছে হিসাব নিকাশ। আওয়ামীলীগের মনোনয়ন পেতে বর্তমান মেয়র জাকির হোসেন তালুকদার,জেলা ‍যুবলীগের সহ-সভাপতি খাইরুল হাসান খোকন, দৌলতখান উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মামুনুর রশিদ চৌধুরী বাবুল, দৌলতখান উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হামিদুর রহমান টিপু, পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক কমিশনার আলমগীর হোসেন, উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুল খালেক ব্যাপক তৎপড়তা চালিয়ে আসছেন। বিএনপির দলীয় মনোনয়ন পেতে দৌলতখান উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এবং সাবেক প্যানেল মেয়র ফখরুল আলম টপি,পৌর বিএনপির সহ- সভাপতি ঢাকায় অবস্থানরত ব্যবসায়ী আনোয়ার হোসেন কাকন মনোনয়ন পেতে তৎপরতা চালাচ্ছেন।
এদিকে খায়রুল হাসান খোকন এবার দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার জন্য আটঘাট বেধে মাঠে নেমেছেন। মনোনয়ন পেতে তিনি কেন্দ্রে জোড় লবিং তদবির চালাচ্ছেন এবং পাশাপশি তিনি দৌলতখান পৌরসভায় প্রতিটি ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে গিয়ে প্রতিদিন গণসংযোগ করছেন। সাধারণ ভোটারদের সাথে কথা বলে জানাগেছে,আওয়ামীলীগের মেয়র প্রার্থী কয়েকজন থাকলেও খায়রুল হাসান খোকন তরুণ এবং ক্লিন ইমেজ সম্পন্ন ব্যক্তি। তার সদালাপী ব্যবহারে তার প্রতি পৌরবাসীর ব্যাপক আগ্রহ সৃষ্টি হয়েছে। বিশেষ করে পৌর সভার প্রকৃত ভোটারদের মধ্যে জেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি খায়রুল হাসান খোকন এখন আলোচনার শীর্ষে রয়েছেন।
মেয়র প্রার্থী খায়রুল হাসান খোকন জানান,তিনি বঙ্গ বন্ধুর আদর্শে অনুপ্রানীত হয়ে ছাত্রলীগের রাজনীতিতে যোগ দান করেন।
জন্ম সুত্রে তিনি আওয়ামী পরিবারের একনিষ্ঠ একজন কর্মী। দলের দুঃসময়ে পাশে থেকে আন্দোলন সংগ্রাম করেছেন।চারদলীয় জোট সরকারের আমলে ব্যাপক নির্যাতন এবং একাধিক মামলার শিকার হয়েছেন। তাই দল তাকে মনোনয়ন দিবে বলে তিনি শতভাগ আশাবাদী। মনোনয়ন পেলে তিনি সরকারের ধারাবাহিক উন্নয়নকে পৌরবাসীর কাছে রুপান্তরিত করে আধুনিক পৌরসভা হিসেবে গড়ে তুলবেন।
দৌলতখান পৌর যুবলীগের সভাপতি মোঃ সেলিম জানান, গত নির্বাচনে খায়রুল হাসান খোকন ভাই মেয়র প্রার্থী হয়েছিলেন। সেই নির্বাচনে ভোটারদের সমর্থনে ব্যাপক এগিয়ে থাকার পরও দলীয় সিদ্ধান্তের কারণে তিনি বর্তমান মেয়র জাকির হোসেন তালুকদারকে সমর্থন দিয়ে ওই নির্বাচন থেকে সড়ে দাড়ান। নির্বাচন থেকে সড়ে দাড়ালেও তিনি করোনাকালিনসহ বিভিন্ন সময়ে অসহায় ও হতদরিদ্র্য মানুষের পাশে থেকে সাহায্য সহযোগিতা করে ভোটারদের মন জয় করে নিয়েছেন। তাই তৃণমূল থেকে তাকে মেয়র পদে দলীয় মনোনয়ন দেওয়ার জন্য জোড় দাবী উঠেছে।