লর্ডহার্ডিঞ্জ ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আবুল কাশেমের জনপ্রিয়তায় লেগে পড়েছে কুচক্রী মহল।

প্রকাশিত: ২:৩৫ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৬, ২০২০

শাহিন আলম মাকসুদ, নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

ভোলা লালমোহন উপজেলার ৯নং লর্ডহার্ডিঞ্জ ইউনিয়নের জনপ্রিয় চেয়ারম্যান ভোলা-৩ আসনের সংসদসদস্য দ্বীপ বন্ধু আলহাজ্ব নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন এর বিশ্বস্ত রাজনৈতিক যোদ্ধা জনাব আবুল কাশেম চেয়ারম্যানের জনপ্রিয়তা ঈর্শান্বিত হয়ে তার বিরুদ্ধে উঠে পড়েছে কিছু কু-চক্রী মহল। এই চক্রটি বিভিন্ন সময় বিভিন্ন দিক থেকে সংবাদকর্মীদের মিথ্যা তথ্য দিয়ে বিভ্রান্তি ছড়িয়ে যাচ্ছে, তিনি লর্ডহার্ডিঞ্জ ইউনিয়নে বিপুল ভোটের মাধ্যমে তিন তিনবার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। এই জনপ্রিয় চেয়ারম্যান আবুল কাশেম চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ভোলা সদর থেকে প্রকাশিত একটি পত্রিকায় চেয়ারম্যান কে উদ্দেশ্য করে একটি মিথ্যা সংবাদ প্রকাশিত হয়। ওই পত্রিকায় সংবাদটিতে উল্লেখ করা হয় চেয়ারম্যান আবুল কাশেম মিয়া তার নিজস্ব ইট ভাটায় অবৈধ জমি দখল করে আছে এবং লর্ডহার্ডিঞ্জ ইউনিয়নে ভূমিহীনদের জন্য গুচ্ছ-গ্রামে নির্মাণকৃত ঘরের বরাদ্দ দেওয়ার কথা বলে অর্থ আত্মসাৎ ও ঘরের নকশা পরিবর্তন করেছেন তিনি। এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কাশেম মিয়া বলেন, লর্ডহার্ডিঞ্জ ৯নং ইউনিয়নের গুচ্ছ-গ্রামের ঘর নির্মাণ করেছেন ঠিকাদার নিজাম উদ্দিন ও সালাউদ্দিন গুচ্ছ-গ্রামের ঘর নির্মাণের নকশা পরিবর্তন করবে কি করবে না সেটা সিদ্ধান্ত নিবে উপজেলা নিবার্হী অফিসার ও প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তাগণ। সেখানে কোন ইউপি চেয়ারম্যানের দায়িত্ব নেই।

তিনি আরো বলেন, তার ইটভাটায় ব্যবহৃত যে জমি সেটা তার নিজস্ব মালিকানাধীন।

স্থানীয় প্রতিবেশীরা জানান, লেবার সর্দার মেম্বার আব্দুল আলী সিকদার তিনি তার স্ত্রীর নামে দীর্ঘ বছর ধরে অবৈধভাবে বয়স্ক ভাতা উত্তোলন করে আসছেন। কথিত আছে যে আব্দুল আলী ও তার ছেলেরা বিভিন্ন চর থেকে অসহায় মানুষদের গরু ও ছাগল চুরির প্রধান হোতা। কিছু দিনের মধ্যেই শূন্য থেকে কোটিপতি হয়ে উঠেছে আলী মেম্বার ও তার ছেলেরা। পার্শ্ববর্তী এলাকার চরফ্যাশন উপজেলার পৌর শহরের মধ্যে একটি বহুতল ভবন নির্মাণ করেছেন আলী মেম্বার ও তার ছেলেরা তাদের অর্থের উৎস কোথায় থেকে সেটা জানার জন্য এলাকাবাসীদের মনে হিড়িক জমে উঠেছে।