প্রকাশিত: ১:৪৫ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২২, ২০২০

সেলিম চৌধুরী স্টাফ রিপোর্টারঃ- চলতি মাসের যে কোন সমশ  ঘোষনা হতে পারে  পৌরসভা নিবার্চনের তফসিল। নির্বাচন কমিশনের ঘোষণা অনুযায়ী বিজয়ের মাস ডিসেম্বরের শেষে দিকে পটিয়া পৌর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।পটিয়া পৌর নির্বাচন নিয়ে  মনোনয়ন যুদ্ধে অবতীর্ণ হয়েছে আওয়ামীলীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টিসহ ইসলামিক দলের সম্ভাব্য প্রার্থীরা। তবে মাঠে নেই জামায়ত প্রার্থী নাম শুনা যাচ্ছে না।    পটিয়া পৌরসভার সর্বশেষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় গত ২০১৫ সালের ৩০ ডিসেম্বর। মেয়াদ শেষ হবে আগামী বছরের ২৮  ফেব্রুয়ারী।   দলীয় মনোনয়ন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সম্ভ্যাব্য প্রার্থীরা সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে প্রচারনা, বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক কর্মসূচীতে অংশ নেয়াসহ নানান সামাজিক কর্মকান্ডে তৎপরতা চোখে পড়ছে। এবারের নির্বাচন নিয়ে দলীয় মনোনয়ন যুদ্ধে অবতীর্ণ হয়েছে বিএনপির নবীন-প্রবীন ছয়জন মনোনয়ন প্রত্যাশী।

এরা হলেন পটিয়া পৌরসভা বিএনপি   সাবেক সভাপতি সাবেক পৌর     মেয়র আলহাজ্ব   নুরুল ইসলাম সওঃ গত পৌর নির্বাচনে বিএনপির দলীয় মেয়র প্রার্থী ও পৌরসভা বিএনপির সাবেক যুগ্ন সম্পাদক মোহাম্মদ তৌহিদুল আলম, পৌরসভা বিএনপির সাবেক যুগ্ন আহবায়ক বিশিষ্ট ব্যাবসায়ি   ব্যবসায়ী গাজী মোহাম্মদ আবু তাহের, দক্ষিণ জেলা যুবদলের সিনিয়র সহ সভাপতি মোহাম্মদ  শাহজাহান চৌধুরী, পটিয়া পৌরসভা যুবদলের সাবেক সিনিয়র   যুগ্ম- আহ্বায়ক  পটিয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সদস্য হাজী নজরুল ইসলাম,  জাতীয়তাবাদী তরুন দলের কেন্দ্রীয় কমিটির    চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল কাদের জুলু। এদিকে বসে নেই   জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান ও চট্টগ্রাম

দক্ষিণ জেলা জাপার  আহবায়ক এবং সাবেক পটিয়া পটিয়া পৌরসভার একাধিকবার নির্বাচিত সাবেক চেয়ারম্যান সামশুল আলম মাস্টার। তিনি আবারও নির্বাচন করতে প্রস্তুতি

সর্বোচ্চ নিচ্ছেন। সাবেক মেয়র

জাপা নেতা সামশুল আলম মাস্টার বলেন, আসন্ন পৌর নির্বাচনে জাপার একক প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নেব। ১৯৯০ সালে পৌরসভা প্রতিষ্ঠার পর থেকে একাধিকবার পৌর চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছি। আমার দায়িত্বপালনকালে পৌরসভায় ব্যাপক উন্নয়ন কাজ হয়েছে। আগামীতে নির্বাচিত হলে এটিকে মডেল ও জনবান্ধব পৌরসভা হিসেবে গড়ে তুলব। । বিএনপির দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী সাবেক পৌর মেয়র ও পৌর বিএনপির সাবেক সভাপতি নুরুল ইসলাম জানান, পটিয়া পৌরসভায় বিগত ডিসেম্বর ১৯৯৩-মার্চ ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান।

জুন ২০০৫-জুন২০০৮ সাল পর্যন্ত নির্বাচিত চেয়ারম্যান এবং জানুয়ারি ২০০৮- ফেব্রুয়ারি ২০১১ পর্যন্ত মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছি। দলের দু:সময়ে নির্বাচনে অংশ নিলেও গত নির্বাচনে পারিবারিক সমস্যার কারণে অংশ নিতে পারিনি। এবার নিবার্চনে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশা করছি। দল যদি মনোনয়ন দেন অবশ্যই নিবার্চনের অংশ নিবেন বলে তিনি জানান। আরেক দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী  গত পৌর নির্বাচনে বিএনপির দলীয় প্রার্থী মোহাম্মদ তৌহিদুল আলম বলেন, গত পৌর নির্বাচনে দলের কঠিন সময়ে দলীয় প্রতীক নিয়ে মেয়র পদে জনগণের যে ভালবাসা পেয়েছি তা ভুলবার নয়। ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করে চট্টগ্রাম বিভাগে সর্বোচ্চ ভোট পেয়েছি।

আমি দু:সময়ে দলের পক্ষে নির্বাচন করেছি। করোনাকালে সাধারণ মানুষের পাশাপাশি দলীয় কর্মীদের পাশে দাঁড়িয়েছি। যড়যন্ত্রমূলক বিভিন্ন মামলায় হয়রানির শিকার হয়েছি। তিনি বলেন, দল সবদিক বিবেচনা করে প্রার্থী দেবে বলে আশাবাদ ব্যাক্ত করে বলেন, দল  যেটা সিদ্ধান্ত  নির্বাচনে জয়ী হলে পটিয়াকে একটি আধুনিক ও দৃষ্টিনন্দন শহর হিসেবে গড়ে তুলবো। বিএনপির মেয়র পদে আরেক মনোনয়ন প্রত্যাশী ও প্রভাবশালী বিএনপি  নেতা গাজী মো: আবু তাহের। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের সাবেক এ নেতা ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে আসন্ন পটিয়া পৌরসভা নিবার্চনে দলের মনোনয়ন পেলে নির্বাচনে মেয়র পদে লড়তে চান তিনি। তিনি জানান, ‘দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন সংগ্রাম ও দলীয় কর্মসূচীতে দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি পারিবারিক ও ব্যক্তিগত উদ্যোগে বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ডে অংশ গ্রহন করছি। এছাড়া একাধিক সামাজিক ও ক্রীড়া সংগঠনের সাথেও কাজ করছি। বিএনপি চেয়াারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া ও ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানে আমাকে মেয়র পদে মনোনয়ন দিলে আমি বিজয়ী হব  এবং পটিয়া পৌরসভাকে একটি পরিকল্পিত, আধুনিক, উন্নত ও মানসম্মত পৌরসভায় রূপান্তর করা হবে।

দক্ষিণ জেলা যুবদলের সিনিয়র সহসভাপতি   মেয়র প্রার্থী মো. শাহজাহান চৌধুরী বলেন, তাদের পারিবারিক ঐতিহ্য রয়েছে। তার দাদা মরহুম আমজু মিয়া সওদাগর ও পিতা আবু মুছা প্রকাশ বালি সওদাগর পটিয়া ১৪ নং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছিলেন। আগামী পটিয়া পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপির সমর্থনে ধানের শীর্ষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করতে আগ্রহী তিনি জানান ১৯৯০ সালে রাজনীতি শুরু দলের জন্য অনেক ত্যাগ শিকার করেছি আশা করি দল আমাকে মুল্যায়ন করবে।

পটিয়া পৌরসভা যুবদলের সাবেক সিনিয়র  যুগ্ম- আহ্বায়ক হাজী নজরুল ইসলাম বিকম, ‘আমি ১৯৮৮ সাল থেকে ছাত্রদলের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত থেকে অদ্যবধি গনতন্ত্রের প্রবক্তা শহীদ জিয়াউর রহমানের আদর্শকে লালন করে আসছি। ওয়ান ইলেভেনের সময় দলের কাজ করতে নির্যাতনের শিকার হয়েছি। আমি ইতিমধ্যে আমার প্রয়াত বাবা আলহাজ্ব আবদুস সালাম ফাউন্ডেশন গঠন করে এলাকার সামাজিক কর্মকান্ডের মাধ্যমে দু:স্থ অসহায় ও সাধারন মানুষকে সহযোগীতা করার চেষ্ঠা করে যাচ্ছি। এবারের পৌর নির্বাচনে ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করার প্রস্তুত রয়েছে ।  দল তাকেই মনোনয়ন দেবেন বলে আশা প্রকাশ করেন। যুবদ। বিএনপির মেয়র  মনোনয়ন প্রত্যাশী ও জাতীয়তাবাদী তরুন দলের কেন্দ্রীয় কমিটির

চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল কাদের জুলু। তরুন এ  বিএনপি নেতা ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে আসন্ন পটিয়া পৌরসভা নির্বাচনে নির্বাচনী বৈতরনী পার হতে চান। তিনি জানান, সামাজিক ও ক্রীড়া সংগঠনের সাথেও কাজ করছি। দলের মনোনয়ন পেলে নির্বাচনে মেয়র পদে লড়তে চায়।

সেলিম চৌধুরী

পটিয়া চট্টগ্রাম

০১৮১৯৩৪৯৪৪২