কুমিল্লা জেলায় মাস্ক না পড়ায় ভ্রম্যমান আদালতে জরিমানা

প্রকাশিত: ৭:১৫ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ২০, ২০২০

আমিনুল হকঃ করোনার এই মহামারি অবস্থায় ও অনেকই এখনো মাস্ক ছাড়া চলাফেরা করছে।নো মাস্ক, নো এন্টি, নো মাস্ক,নো সার্ভিস এই কথা গুলো দেশের সকল প্রতিষ্ঠান,স্কুল, কলেজ, পার্ক, বাজার,মসজিদ ইত্যাদিতে থাকলেও কেউ মানছেন না কোনো নিয়ম-কানুন ও সামাজিক দূরুত্বতা।

শীতে করোনা ভাইরাসের ২য় ঢেউ আসতে পারে বিধায়।
গতকালকের মত আজ সকাল ১০ঘটিকায় কুমিল্লার ডিসি অফিসে বিশেষ একটি মিটিং এর পর যাদের মাস্ক ও সামাজিক দূরুত্ব থাকবে না। তাদের কে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে মামলা দায়ের পদ্ধতিটি চালু করা হয়েছে।
ডিসি অফিস থেকে গতকালকের মত আজকে ও ২৮ জন ম্যাজস্ট্রেট ২৮টি টিমে ভাগ হয়ে পুরো কুমিল্লা জেলার ২৮টি স্থানে আজ মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে মামলা পদ্ধতিতে
মোবাইল কোর্ট,মামলা,অর্থদন্ড ও জরিমানা করা হয়েছে।

আজ ১১টা নাগাদ কুমিল্লার সাওার খান মার্কেট ও খন্দকার মার্কেটের সামনে থেকে ৭জনকে বিনা মাস্কে চলাচল করা অবস্থায় ধরা হয়েছে।
এমনকি কুমিল্লার জনবহুল এলাকা টমছম ব্রিজের কাছ থেকে জনাব জাকিয়া আফরিন (উপজেলা নির্বাহী অফিসার, আর্দশ সদর কুমিল্লা) নেতৃত্বে ২৬জনকে ও বিনা মাস্কে চলাচল করা ধরা হয়েছে। বিভিন্ন দোকানী সহ মোট জরিমানা করা হয় ৩৯৫০টাকা মাএ।

দৈনিক ডাক প্রতিদিনের বিশেষ প্রতিনিধি আমিনুল হক সাধারণ জনগণদের কাছ থেকে তারা কেন মাস্ক পরে না জানতে চাইলে
একজন পথচারী জানান যে,মাস্ক পরলে শ্বাস নিতে কষ্ট হয়, বুক ধরফর করে ও কথা বলতে কষ্ট হয় মানুষের সাথে।

টমছম ব্রিজের একজন ফল বিক্রেতা জানান যে,
মাস্ক পরে কথা বলতে ভাল লাগে না ও শ্বাস ফেলতে কষ্ট হয়।ক্রেতারা তাদের কথা বুঝতে পারেনা।

কুমিল্লা ডি. সি অফিসের একজন ডিসি বলেন যে,
আজকে আমরা ২৮ জন ডিসি মিলে ২৮টি টিমে আজ ভাগ হয়ে পুরা কুমিল্লা জেলায় তারা মোবাইল কোর্টের মামলা পদ্ধতি চলছে দুপুর পর্যন্ত তারা মোট ১০৫জনকে মোবাইল কোর্টের মামলায় অভিযুক্ত করা হয়েছে। আজকে দিন শেষ বলা যাবে মোট কতজনকে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে জরিমানার অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

রাত ৭ ঘটিকার দিকে কুমিল্লার ডিসি অফিসের এডিম স্যার(মোহাম্মদ মাইন উদ্দিন,কুমিল্লা জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ভারপ্রাপ্ত) দৈনিক ডাক প্রতিদিন এর বিশেষ প্রতিনিধি আমিনুল হক কে জানান যে আজ সারাদিনে ২৮জন ডি.সি. মিলে মোবাইল কোর্ট মামলার ২য় দিনের পরিসর শেষে জানা যায় যে,

মোবাইল কোর্ট-২৮টি,
মামলা -২১৭টি
অর্থদন্ড করা হয়েছে -২৮১
জনকে
মোট জরিমানার করা হয়েছেঃ৮৮,৯৩০টাকা মাএ।
কুমিল্লা সকল সামাজিক কর্মীরা ও ভলেন্টিয়ারদের একটাই দাবি যে করোনা ভাইরাসের ২য় আক্রমণ যাতে সকলেই কঠোর ভাবে প্রতিহত করতে পারে। তাই, সকলে বাধ্যতামূলক ভাবে মাস্ক পরে চলতে হবে ও সামাজিক দূরুত্ব মানতে হবে।আর,ম্যাজিস্ট্রেট দের এই মোবাইল কোর্টের মামলায় জরিমানা পদ্ধতিতে বাংলাদেশের সকল মানুষদের সর্তকতা জাগানো হচ্ছে। যাতে মানুষজন আতঙ্কিত না হয়ে, সচেতন হয়ে মাস্ক পরে রাস্ত-ঘাটে চলাচল করে।আমরাই পারব একদিন এই করোনা ভাইরাস মুক্ত বাংলাদেশ গড়তে