চিরকুট লিখে দৌলতখানে শচীন চন্দ্র দে নামে এক অনার্স পড়ুয়া কলেজ ছাত্রের আত্মহত্যা

প্রকাশিত: ১:৪৮ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১০, ২০২০

দৌলতখান (ভোলা) প্রতিনিধিঃ
ভোলার দৌলতখানে চিরকুট লিখে শচীন চন্দ্র দে নামে এক কলেজছাত্র তার নিজ ঘরের আড়ার সঙ্গে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

গতকাল সোমবার (৯ নভেম্বর) বিকেল ৫টায় দৌলতখান উপজেলার সৈয়দপুর ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে। নিহত শচীন চন্দ্র দে কর্মকর্তা নিতাই চন্দ্র রক্ষিত দের ছেলে।
তিনি ভোলা সরকারি কলেজের অনার্স চতুর্থ বর্ষের ছাত্র ছিলেন।
মৃত্যুর আগে চিরকুটে সম্পদ চন্দ্র দে লিখেছিল, অন্তুর কোন দোষ ছিল না। ভুল সব আমারই ছিল। আমার আর ভালো লাগে না এই পৃথিবী। এক বিন্দুও বাচঁতে ইচ্ছে করে না আর এখানে থাকতে। এই পৃথিবীতে সত্যিকারের ভালোবাসার কোনো মূল্য নেই। আমি চলে যাচ্ছি।

নিহত সম্পদ চন্দ্র দের বোন মৌসুমি জানান, প্রতিদিনের ন্যায় ভাই বিকেলে খাওয়া দাওয়া করে রুমে ঘুমাতে যান। বিকেল ৫টার দিকে তারা তার রুমে খুব জোরে নড়াচড়ার শব্দ শুনতে পান। পরে রুমের ভেতর গিয়ে আড়ার সঙ্গে ভাইকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান। এ সময় তাদের ডাক চিৎকারে পাশ্ববর্তী লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ভাইকে মৃত ঘোষণা করেন।

খবর পেয়ে দৌলতখান থানা পুলিশ হাসপাতালে গিয়ে তার মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ভোলা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে দৌলতখান থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) গোলাম মোস্তফা জানান নিহতের রুমে আমরা একটি চিরকুট পেয়েছি। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা যাচ্ছে, এ মৃত্যু প্রেমঘটিত বিষয়ে হয়ে থাকতে পারে। তবে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়া গেলে জানা যাবে এটি হত্যা না আত্মহত্যা।
এ ঘটনায় দৌলতখান থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও জানান দৌলতখান থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) গোলাম মোস্তফা।