ভোলায় গাছ না কেটেও নারীসহ ৫ জন মিথ্যা মামলার আসামী!

প্রকাশিত: ১:৪০ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১০, ২০২০

স্টাফ রিপোর্টারঃ

ভোলা দৌলতখান উপজেলার উত্তর জয়নগর ৯ নং ওয়ার্ডে গাছ কেটে নিয়েছে বলে ৫ জনকে আসামি করে একটি মিথ্যা মামলা করেছে বলে কাঞ্চনের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে।

মোহাম্মদ সিরাজ অভিযোগ করে জানান, আমি ৭২ শতাংশ জমি খরিদ সূত্রে মালিক। দীর্ঘদিন ধরে বসতঘর তুলে আমার স্ত্রী সন্তানদের নিয়ে সুখে শান্তিতে দিন কাটাচ্ছেন। আমি বিদেশ প্রবাসী এ সুবাদে কাঞ্চন গংরা আমার অবর্তমানে বেশ কিছু ভূমি জবর দখলের চেষ্টা করে। আমার জমি থেকে গাছ কেটে নিয়ে যায়। আমার স্ত্রী মরিয়ম বাধা দিতে গেলে তাকে শারীরিক নির্যাতন করার চেষ্টা করে।
বিষয়টি আমার স্ত্রী এলাকার গণ্যমান্যদের জানাই। তারা উক্ত সমস্যার সমাধান করে দিবে বলে আশ্বস্ত করেন।

এ সুযোগে কুচক্রী কাঞ্চন উল্টো আমাদের বিরুদ্ধে তিনটি মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করেন।
গত ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ইং তারিখ কাঞ্চন বাদী হয়ে আমার স্ত্রীসহ ৫ জনকে আসামি করে নন-জিআর একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করেন।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, মামলার বাদী কাঞ্চনের ছোট ভাই জলিল স্বীকার করে বলেন, মূলত এখনকার মামলাগুলো মিথ্যা অভিযোগের হয়ে থাকে ব্যক্তি স্বার্থ হাসিলের জন্য।

যে জমি ও গাছ কাটাকে কেন্দ্র করে মামলা করেছে আমার ভাই কাঞ্চন ওই জমি ও গাছের মলিক নয়। গাছ এখনো স্ব’স্থানে রয়েছে।
এলাকাবাসী জানান, এ বিষয়ে এলাকায় দফায় দফায় সালিশ হওয়া সত্বেও কাঞ্চন কোন সালিশির তোয়াক্কা না করে নিজ খামখেয়ালিপনায় এসব অপকর্ম করে থাকেন।

ভুক্তভোগী মোহাম্মদ সিরাজ আরো জানান, কাঞ্চন বাদী নন-জিআর মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বাংলাবাজার পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ এসআই জিন্নাত আলী মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে মিথ্যা মামলা নিয়ে অহেতুক ৫ জন আসামিকে হয়রানি করছে। বিষটি খতিয়ে দেখতে পুলিশের উর্ধতন কতৃপক্ষের সদয় দৃষ্টি কামনা করেন।

এব্যাপারে এস আই জিন্নাত আলীর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযোগের সত্যতা প্রমাণ পেয়ে আমি মামলা কোর্টে প্রেরণ করেছি।

ভুক্তভোগী সিরাজ গংদের অসহায় পরিবার কুচক্রী কাঞ্চনের মিথ্যা মামলার হাত থেকে বাচার জন্য তদন্ত পুর্বক ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য পুলিশ প্রশাসনের কাছে জোর দাবী জানান।