চরফ্যাশনে দুই হত্যাকাণ্ডের পর সৎ বোনকেও হত্যার হুমকি হাছানের!

প্রকাশিত: ১১:২৪ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৮, ২০২০

আমিনুল ইসলাম,
চরফ্যাশন প্রতিনিধিঃ

ভোলা-চরফ্যাশন পৌরসভা ৫নং ওয়ার্ড শরীফ পাড়ায় সম্পত্তির লোভে পিতা কামাল হোসেন ও সৎ ভাই হাছান এখন পাগল প্রায়৷ সৎ ভাইয়ের হত্যার হুমকীর মুখে নিরাত্তা হীনতায় ফেরদাউসী বেগম। এই বিষয়ে মঙ্গলবার (২৭অক্টোবর) ফেরদাউসী চরফ্যাশন সংবাদকর্মীদের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, বিএনপির নেতা কামাল হোসেনের বড় কন্যা ফেরদাউসী বেগম। ফেরদাউসীর বয়স যখন ২বছর তার মা পিতা কামালের অত্যাচারে আত্মহত্যা করেন। মায়ের ওয়ারিশ হিসাবে ৮০ শতক জমির মালিক হন ফেরদাউসী। জিন্নাগড় মৌজার ৭৬৫ খতিয়ানে ১৯৮ দাগের জমির মধ্যে মাত্র ৫২শতক জমি দেয়া হয় মেয়ে ফেরদাউসীকে।

সেটেলমেন্ট অফিসের ৩০ ধারায় ফেরদাউসীর নামে রেকর্ড হলেও ৩১ধারায় পিতা কামাল হোসেনের নামে বাকী জমি রেকর্ড করা হয়। ওই জমি নিয়ে কন্যা-পিতা ও সৎ ভাইয়ের মধ্যে রয়েছে দ্বন্দ। এই বিষয় স্থানীয় ভাবে একাধিকবার শালিশ বৈঠক করেও মীমাংসা হয়নি৷

২০১৯ সালে ফেরদাউসী তার ওয়ারিশে পাওয়া জমির উপর ছাদ দিয় ঘর করার পরই ক্ষিপ্ত হয় পিতা ও সৎভাই হাছান। ২০১৪ সালেও কামাল হোসেনের বড় ছেলে পিতা ও সৎ মার আত্যাচারে আত্মহত্যা করেন। একই সংসারের দু‘টি আত্মহত্যার ঘটনা ঘটলেও অনেকেরই ধারণা এদুটি হত্যা কান্ড৷

ফেরদাউসী বলেন, গত ১৫ অক্টোবর/২০ তারিখে মায়ের পাওনা জমি থেকে সুপারি পাড়ি৷ সুপারি পাড়ায় পিতা কামাল হোসেন, সৎ মা আমেনা বেগম শেফু, সৎ ভাই এনামুল হাসান আমার ঘরে প্রবেশ করে পিটিয়ে বসত ঘরে থাকা ৮০ হাজার টাকা, ১ জোড়া স্বর্ণের রুলি ১টি চেইনসহ ঘর লুটপাট করে নিয়েগেছে৷ বিষয়টি আমি ভোলা জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার বরাবর বিচার চেয়ে আবেদন করি সর্বশেষ উপায়ান্ত না পেয়ে চরফ্যাশন জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে ২২১৪/২০ (চরঃ) মামলা দায়ের করি৷ মামলা আদালত ২ ডিসেম্বর /২০ তারিখে স্ব-শরীরে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

বর্তমানে আমি মামলা করে নিরাপত্তাহীনতা ভোগছি। আমাকে হুমকী ধামকী দিয়ে বেড়াচ্ছে। পিতা কামাল হোসেন মামলা দেওয়ার পরে আমাকে ৬ মাস জেল খাটোনের হুমকি দেয়া হয়। সৎ ভাই হাছান বলে এই পরিবারে ২টা আত্মহত্যা হয়েছে আমাদের কিছু হয়নি। তোকে হত্যা করে জেল খাটবো৷

এই ব্যপারের কামাল হোসেনের মোবাইল নাম্বারের যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও কল রিসিভ না করায় তার বক্তব্য জানাযায়নি। তবে সৎ ভাই হাছান হত্যার হুমকি সম্পর্কে অস্বীকার করেন৷