ভোলা-চরফ্যাশনে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে আমরণ অনশন

প্রকাশিত: ৮:৪৫ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৪, ২০২০

ভোলা-চরফ্যাশন উপজেলার চর মানিকা ইউনিয়ন ৮নং ওয়ার্ড চৌধুরী বাড়ির রফিক চৌধুরীর ছেলে মোঃ মাহফুজকে (১৮) বিয়ে করার দাবিতে আমরণ অনশন শুরু করেছেন হাজারীগঞ্জ ইউনিয়ন ৩নং ওয়ার্ডের মোঃ মনিরের কন্যা আকিতা বেগম (১৩)৷

বুধবার (১৪অক্টোবর) সকাল ৭টা থেকে আকিতা বেগম দীর্ঘ দুই বছরের প্রেমকে বাস্তবে রূপ দিতে বিশ্বাসঘাতক প্রেমিক মাহফুজের বাড়িতে এ অনশন শুরু করেন৷

সরেজমিন দেখা যায়, অনশনরত তরুণী প্রেমিকের বাসায় ঢুকে একটি চেয়ারে বসে আছেন৷ ছেলের আত্মীয়-স্বজন মেয়েটিকে অশালীন ভাষায় গালমন্দ করতে শোনা যায়৷ প্রেমিকা আকিতা বেগম বাসায় আসার সংবাদ পেয়ে পিছনের দরজা দিয়ে পালিয়ে যান বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে একাধিকবার দৈহিক মিলনে বাধ্য করা প্রতারক মাহফুজ৷ তার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করতে চাইলে ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়৷

আকিতা বেগম জানান, মাহফুজের সাথে দীর্ঘ ২বছর যাবত প্রেমের সম্পর্ক চলছে। সে বিয়ে করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে আমার সাথে শারীরিক সম্পর্ক করতে বাধ্য করেন৷ হঠাৎ করে আমার সাথে কথা বলা বন্ধ করে তার পরিবারের সিদ্ধান্তে অন্যত্র বিয়ে করার পরিকল্পনা করেন৷ আমি এ সংবাদ পেয়ে আমার পবিত্র ভালোবাসা রক্ষার্থে এবং শারীরিক সম্পর্কের কলঙ্ক থেকে মুক্ত হতে তার বাড়ি ছুটে আসি৷ মাহফুজ আমাকে বিয়ে না করা পর্যন্ত আমি এ বাসা থেকে যাবনা৷ জোরপূর্বক আমার এ যৌক্তিক দাবি না মানা হলে বা সরিয়ে দিতে চাইলে আমি আত্মহত্যা করব৷

মাহফুজের বাবা রফিক চৌধুরী বলেন, আমার ছেলে এই মেয়ের সাথে সম্পর্ক অথবা বিয়ের কথা কখনোই আমাদেরকে বলেনি৷ ছেলের সিদ্ধান্তে আমরা অন্যত্র মেয়ে দেখে বিয়ের প্রস্তুতি নিয়েছে৷ আজ হঠাৎ এ মেয়েটি এসে ঝামেলায় ফেলে দিল৷ মাহফুজ এখন বাসায় নেই সে আসলে আলোচনা করে বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করব৷

আকিতার মা মহর বানু জানান, আমাদের বাড়ির পাশে মাহফুজের আত্মীয়ের বাসায় আসা যাওয়ার সুবাদে আমার মেয়ের সাথে পরিচয়, পরিচয় থেকে প্রেমের সম্পর্ক হয়েছে৷ ছেলেটি আমার মেয়ের সাথে প্রতারণা করে এখন অন্য জায়গায় বিয়ে করতেছে৷ মেয়েটি আমার ৪দিন ধরে কিছু খাইনি৷ আজ হঠাৎ আমাদেরকে কিছু না বলে বাসা থেকে চলে গেছে৷ পড়ে জানতে পারি সেই ছেলের বাড়িতে গেছে৷

চর মানিকা ইউপি চেয়ারম্যান শফিউল্লাহ হাওলাদার জানান, বিষয়টি আমার নজরে আসলে, যে কোন দুর্ঘটনা এড়াতে মেয়েটিকে বুঝিয়ে আমার বাসায় নিয়ে এসেছি৷ উভয়পক্ষের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে সুন্দর একটি সমাধানের চেষ্টা করব৷