ভোলার তজুমদ্দিনে হিন্দু সম্প্রদায়ের শারদীয় দূর্গা পূজা উপলক্ষ্যে ব্যস্ত মৃৎ শিল্পীরা।

প্রকাশিত: ৭:৩৭ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৬, ২০২০

সাইফুল ইসলাম সাকিব
ভোলার তজুমদ্দিনে করোনা প্রাদুর্ভাবের মধ্যেও প্রতিমা তৈরীতে ব্যস্ত সময় পার করছেন মৃৎ শিল্পীরা। আর মাত্র ক’দিন পরেই হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গা পূজা। পূজার প্রায় ২ মাস আগে থেকে প্রতিমা তৈরীতে ব্যস্ত সময় পার করছেন তারা। উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় মন্ডপে দূর্গা পূজা উদ্‌যাপন করা হবে। হিন্দু সম্প্রদায়ের দেবী দূর্গা এবার দোলায় আগমণ এবং গজে গমণ করবেন। এ বছর তজুমদ্দিন উপজেলায় সম্ভ‍াব‍্য ১৩ টি পূজা মন্ডপে পূঁজা অর্চনা হবে। উপজেলা পূজা উদ্‌যাপন কমিটি ইতোমধ্যে পূজা উদযাপনের প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নিচ্ছেন। তবে এ বছর করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে পূজা মন্ডপগুলোতে সাজসজ্জা করা হবে সীমিত আকারে । সীমিত আকারে ভাবে পূজা উদ্‌যাপন করবেন উপজেলার হিন্দু সম্প্রদায়। তবে এ বছর করোনা ভাইরাসের কারণে পূজামন্ডপে স্বাস্থ্য বিধি মেনে পূঁজার কার্যক্রম করা হবে।

উপজেলার পূজা মন্ডপ গুলো ঘুরে দেখা গেছে, মন্ডপ গুলোতে উৎসবের ছোয়া লেগেছে। বিরামহীন ভাবে প্রতিমা তৈরীর কাজ করেছেন মৃৎ শিল্পীরা। মৃৎ শিল্পীরা বলেন এই বছরে ভালো ভাবে প্রতিমা তৈরি করতে পারবো না।
কারন করোনা ভাইসার এর কারনে এবার পূজা বেশি সুন্দর হবে না। এবং আরো বলেন অন্য অন্য বছর আমরা প্রতিমা তৈরি করার সময় নিজের মধ্যে অন্য একটা আনন্দ ছিলো। সেই আনন্দ টা এই বছরে নেই।

এ বিষয়ে উপজেলা পূজা উদ্‌যাপন কমিটির
সভাপতি, বিমল বিশ্বাস সাধারন সম্পাদক খোকন চন্দ্র দাস ভোলার কণ্ঠ ও দৈনিক দখিনের সময় কে জানান ‘আমরা পূজা উদ্‌যাপন পরিষদের পক্ষ থেকে দুর্গোৎসব শান্তিপূর্ণ ও উৎসবমুখর পরিবেশে সম্পন্ন করতে প্রায় সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছি। করোনা ভাইরাসের কারণে এবছর পূজা মন্ডপ গুলোতে
সীমিত ভাবে পূজা উদ্‌যাপনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। উপজেলার সবটি মন্ডপে সামাজিক দুরুত্ব বজায় রেখে পূজা উদযাপিত করবেন ভক্তরা। তাঁরা জানান, এবার উপজেলার ১৩টি মণ্ডপে পূজা উদ্‌যাপিত হবে। আরো বলেন এর মধ্যে ঝুঁকিপূর্ণ মণ্ডপকে বিশেষ নজরদারিতে রাখার জন্য প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ করা হয়েছে।