মাদকমুক্ত লালমোহন গড়তে সকলের সহযোগিতা চাইলেন -এমপি শাওন।

প্রকাশিত: ৭:৩৭ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২০

এ .এইচ .রিপন ভোলা প্রতিনিধি:

মুজিব বর্ষের অঙ্গীকার, পুলিশ হবে জনতার শ্লোগানকে সামনে রেখে মাদক, জঙ্গী, ইভটিজিং, বাল্যবিবাহ, সাইবার ক্রাইমসহ সামাজিক অবক্ষয় প্রতিরিাধে বিট পুলিশিং সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ভোলার লালমোহ থানা আয়োজনে লালমোহন থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ মাকসুদুর রহমান মুরাদের সভাপতিত্বে ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ ইং সকালে থানা ভবনের নিচতলায় এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ভোলা-৩ আসনের (লালমোহন-তজুমদ্দিন) এর সংসদ সদস্য আলহাজ্ব নূরুন্নবী চৌধূরী শাওন।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন রাষ্ট্রের প্রধান দায়িত্ব হলো আইন প্রনয়ন করা। সরকার দেশের মানুষের জন্য আইন প্রনয়ন করবে এবং জনগন সে আইন মেনে চলবে। কেউ ব্যত্যয় ঘটালে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তা প্রতিরিাধ করবে। মাদকের বিরুদ্ধে সরকারের পক্ষ থেকে জিরো টলারেন্স ঘোষনা করেছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী। লালমোহন-তজুমদ্দিনও মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষনা করা হলো। অপরাধ নির্মূলে জাতির জনক শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জিরো টলারেন্স নীতি বাস্তবায়নে সফল হয়েছেন।
এমপি শাওন আরও বলেন ২০০১ সালে এই এলাকায় ছিল অপরাধীদের অভয়ারন্য। লালমোহনের কার্ড দিয়ে চাঁদাবাজী করা হতো। তখনকার যুবদল, ছাত্রদল, বিভিন্ন ক্লাব ও বীরবিক্রম বাহীনীর নামে। এই এলাকার মানুষ তখন অপরাধীদের কাছে ছিল অসহায়। ছিল না কোন ন্যায় বিচার। আমি প্রথম যখন এই এলাকায় নির্বাচন করতে এসেছি তখন আপনাদেরকে কথা দিয়েছিলাম আমি নির্বাচিত হতে পারলে কোন চাঁদাবাদকে এই লালমোহন-তজুমদ্দিনে বুক উচিয়ে চলতে দিব না। আমি সেই কথা রেখেছিলাম এখন এখানে কোন চাঁদাবাজ নেই। নেই কোন সন্ত্রাসী সংগঠন। এখন লালমোহন-তজুমদ্দিনের মানুষ শান্তিতে বসবাস করছে। এখানে এখন সব রকম অপরাধ কমে আসলেও মাদক এখনও রয়ে গেছে। তাই মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষনা করা হলো। সে যে দলেরই হোক তাকে কোন রকম ছাড় দেয়া হবে না। পুলিশকে আপনারা অপরাধ দমনে সহযোগিতা করবেন। সকলের সহযোগিতায় আমরা লালমোহন-তজুমদ্দিনকে একটা পরিচ্ছন্ন ও অপরাধমুক্ত শহর হিসাবে দেখব।