হারিয়ে যাওয়া ছেলেকে খুঁজে দিল ঈশ্বরদী থানা পুলিশ।

প্রকাশিত: ৯:৫৬ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১০, ২০২০

শিশির মাহমুদ (পাবনা): পুলিশের আন্তরিকতায় হারিয়ে যাওয়ার এক দিনের মাথায় সিয়াম (১০) নামের এক ছেলেকে ফিরে পেলেন স্বজনরা। পরিচয় নিশ্চিত হওয়ার পর বুধবার দুপুরে ওই ছেলেকে পরিবারের হাতে তুলে দেয় ঈশ্বরদী থানা পুলিশ। সন্তানকে ফিরে পেয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন সিয়ামের মা । এ সময় পুরো থানা চত্বরে আবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মাদারীপুরের শিবচরের বাসিন্দা সিয়াম জন্মের ৪ মাস পরই তার পিতাকে হারিয়েছেন।

মঙ্গলবার (৮ই সেপ্টেম্বর ) সে তার মায়ের সাথে বাসে চাপাইনবাবগঞ্জ থেকে তাদের গ্রামের বাড়ি মাদারীপুর শিবচরে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে ঈশ্বরদীর রুপপুর মোড়ে বাস যাত্রাবিরতি দিলে সবাই নেমে পড়ে। যাত্রাবিরতি শেষে সবাই গাড়িতে উঠলেও তার মায়ের অনাকাঙ্ক্ষিত অসাবধানতা বশত তাকে ছাড়াই গাড়ি ছেড়ে দেয়। এরপর সে সেখানে কিছুসময় অপেক্ষা করে একটি সিএনজিতে উঠে দাশুরিয়া মোড়ে এসে হতাশ হয়ে ঘুরতে থাকে।

ঈশ্বরদী থানায় জরুরী ডিউটিতে নিয়োজিত এস আই ফিরোজ হোসেন খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ঈশ্বরদী সার্কেল) ফিরোজ কবিরের সাথে ফোনে আলোচনা করে সিয়ামকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

এদিকে সিয়াম তার মায়ের নাম ও বাড়ি মাদারীপুরের শিবচরে বলতে পারলেও কোন ফোন নাম্বার বা বিস্তারিত কিছুই বলতে না পারায় চিন্তিত হয়ে পড়ে ঈশ্বরদী থানার পুলিশ।

অবশেষে সিয়াম দেশের উত্তর পুর্বাঞ্চলের একটি জেলার নাম বলে সেই জেলার এডিসি তার নিকট আত্নীয় বলে জানায়।

এদিকে ফিরোজ কবির জানান, সেই জেলার ওয়েবসাইট খুঁজে ডিসি অফিসে সেই বর্ননার কোন এডিসির তথ্য পাওয়া যায়নি। কিছুটা হতাশ হলেও নিশ্চিত হওয়ার জন্য সেই জেলার ডিসি অফিসের একজন অফিসারকে ফোন দিলে তিনি সেখানে এমন কোন কর্মকর্তা নেই বলে জানান। তবে অন্য অফিসে কাছাকাছি বর্ণনার একজন অফিসার আছেন বলে জানিয়ে তাহার ফোন নম্বর দেন। তাকে ফোন দিলে তিনি বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারের ২২তম বিসিএস এর একজন কর্মকর্তা বলে জানান এবং ছেলেটি তার অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ আত্মীয় বলে তাকে উদ্ধারের জন্য ধন্যবাদ জানান।

এদিকে সিয়াম মহা দুশ্চিন্তায় থাকায় কোন কিছই মুখে নিচ্ছিল না। কিন্তু তাকে খাওয়ানোর মতো কঠিন কাজটিসহ রাতে গভীর আদর স্নেহে ঘুমিয়ে দেয়ার দায়িত্ব নেয় ঈশ্বরদী থানার সিনিয়র এস আই ফিরোজ হোসেন ও থানার শিশু হেল্পডেস্কের নারী পুলিশ সদস্যরা।

পরদিন বুধবার দুপুর ১ টায় সিয়ামের মা এসে থানায় হাজির হলে সিয়ামকে তার মায়ের হাতে তুলে দেয় ঈশ্বরদী থানা পুলিশ।

হারিয়ে যাওয়া ছেলেকে নিয়ে মাদারীপুর ফেরার পূর্বে আবেগাপ্লুত মা (সিয়ামের মা) পুলিশের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, পুলিশের মাধ্যমে খবর পেয়ে ছেলেকে ফিরে পেয়ে খুব ভালো লাগছে। পুলিশের আন্তরিকতার কারণে এটা সম্ভব হয়েছে।