জুমারবাড়ীতে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে হামলা ও ভাংচুর আহত ৫

প্রকাশিত: ১০:২৫ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৩০, ২০২০

মোঃ সাহাবুল ইসলাম সাঘাটা প্রতিনিধি

গাইবান্ধার জেলার সাঘাটা উপজেলার জুমারবাড়ীতে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, বাড়ীতে ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় উভয় পক্ষের ৫ জন আহত হয়েছে। আহতরা সাঘাটা হাসপাতাল ও বগুড়া জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

জানাগেছে, উপজেলার জুমারবাড়ী ইউনিয়নের মামুদপুর গ্রামের ফারুক হোসেন এর পুত্র সিয়াম (৯) ও চান্দপাড়া গ্রামের আলতাব হোসেনের পুত্র আল একরাম (৮) উভয়ই মাদ্রাসার ছাত্র। গত ২৪ আগষ্ট তাদের দুইজনের মধ্যে বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে মারামারির ঘটনা ঘটে। সিয়ামের সাথে মারামারি বিষয়টি আল একরাম তার বড় ভাই ইমরান (১৬) কে জানায়। ইমরান এ কথা শুনে ঘটনাস্থলে গিয়ে সিয়ামকে চর থাপ্পর মারে। সিয়াম কে মারপিটের কথা শুনে তার বড় ভাই সিমান্ত (২০) আলতাবের বাড়ীতে গিয়ে আল ইমরান কে মারপিট করে। এরই জের ধরে গত ২৬ আগস্ট আনুমানিক রাত ৮টায় আলতাব হোসেন তার ভাড়াটিয়া লোকজন নিয়ে ফারুক হোসেনের স্বপ্নপুরী হোটেল এন্ড রেস্ট্ররেন্টে গিয়ে অতর্কিত হামলা চালায় এবং ফারককে বেদম মারপিট করে। এ সময় হোটেলের আসবাবপত্র সহ বিভিন্ন জিনিসেরও ক্ষতি সাধন করে। ফারুকের উপর হামলার ঘটনায় ফারুককে মেরে ফেলা হয়েছে এ কথাটি ছড়িয়ে পড়লে ফারুকের লোকজন সহ এলাকাবাসী ক্ষিপ্ত হয়ে ওই দিন রাত আনুমানিক সাড়ে ৯টায় আলতাব হোসেনের বাড়ীতে হামলা চালিয়ে বাড়ীঘর সহ আসবাবপত্র ভাংচুর করে। এ ঘটনায় উভয় পক্ষের আহত ব্যক্তিরা হচ্ছে- হায়দার আলী (২৮), জিল্লুর রহমান (৩৫), আল ইমরান (১৬), ফারুক হোসেন (৩৫) ও সোনা মিয়া (৪০)।

এ ব্যাপারে আলতাব হোসেনের স্ত্রী ইতি বেগম জানান, ফারুক হোসেনের লোকজন আমার বাড়ীতে হামলা চালিয়ে ঘরবাড়ী ও আসবাবপত্র ভাংচুর করে এবং নগদ ৪ লাখ ৫০ হাজার টাকা ও ৪ ভরি স্বর্ণালংকার লুট করে নিয়ে যায়।

অপরপক্ষে ফারুক হোসেনের পরিবার জানায়, আলতাব হোসেনের লোকজন আমাদের জুমাবাড়ী বাজারে স্বপ্নপুরী হোটেল ভাংচুর করে এবং হোটেলের ক্যাশবাক্সে থাকা প্রায় ২ লাখ টাকা লুটতরাজ করে নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে সাঘাটা থানায় উভয় পক্ষই মামলা দায়ের করেছে।